দৈনিক দুর্যোগ প্রতিবেদনকুড়িগ্রাম: জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা, কুড়িগ্রাম জানান, সাম্প্রতিক অতিবৃষ্টি ও নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে কুড়িগ্রাম জেলার ৪ টি উপজেলার (ফুলবাড়ী, কুড়িগ্রাম সদর, উলিপুর, রাজারহাট) ১৩ টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলের ৩৩ টি গ্রাম আংশিক প্লাবিত হয়ে ৯৪৯ টি পরিবারের ৩৪২২ জন লোক এবং ৫৩৯ টি ঘরবাড়ীর আংশিক ক্ষতি হয়। নদ-নদীর পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্লাবিত এলাকার পানি কমে গেচে। বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে।

লালমনিরহাট: জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা, লালমনিরহাট জানান, সাম্প্রতিক অতিবৃষ্টি এবং উজান তেকে নেমে আসা ঢলের কারনে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল এবং জেলার ৩ টি উপজেলার (হাতিবান্ধা, আদিতমারী, লালমনিরহাট সদর) নিম্নাহ্চরের ১২ টি ইইুনিয়নের ৬৬৭২টি পরিবার এবং ১৪৬ টি ঘরবাড়ী আংশিক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্য হিসেবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের বরাদ্দ থেকে জেলা প্রশাসন কর্তৃক ৩৫.০০ মেঃটন জিআর চাল বরাদ্দ প্রদান করা হয়। নদীর পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্লাবিত এলাকার পানি কমে গেচে। বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে।

ডাউনলোড