থাই গুহায় আটকে পড়া কিশোর ফুটবল দল। ছবি: বিবিসি

সিডিএ: থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহায় আটকে পড়া ১২ খুদে ফুটবলার এবং তাঁদের কোচকে উদ্ধারের রুদ্ধশ্বাস অভিজানের সমাপ্তি ঘটেছে। থাই নেভি সিল নিজেদের ফেইসবুক পাতায় এ খবর নিশ্চিত করেছে। খবর বিবিসির।

মঙ্গলবার অভিযানের তৃতীয়দিনে গুহা থেকে নবম, দশম এবং এগারোতম কিশোরকে উদ্ধার করা হয়। থাই নেভি সিলের ফেসবুক পেইজে অভিযানের শেষে এক পোস্টে বলা হয়, ‘১২ ওয়াইল্ড বোয়ার ও তাদের কোচ গুহা থেকে বেরিয়ে এসেছে এবং তারা নিরাপদ আছে।’

‘ওয়াইল্ড বোয়ার’ ফুটবল দল ও তাদের কোচকে গুহা থেকে বের করে আনার মধ্যদিয়ে ১৭ দিনের ক্লান্তিকর এক অভিযান শেষ হতে হলো।

গত ২৩ জুন থাই কিশোর ফুটবল দলের ১২ সদস্য ও তাদের কোচ চিয়াং রাই প্রদেশের ‘থাম লুয়াং’ গুহায় প্রবেশের পর আটকা পড়েছিল। বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা আর বের হতে পারেনি।

এরপর টানা ৯ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ২ জুলাই গুহার ভেতরে জীবিত অবস্থায় তাদের শনাক্ত করেন ডুবুরিরা। রবিবার (৮ জুলাই ২০১৮) থাইল্যান্ড সরকার তাদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

অভিযান শুরুর দিনই চারজনকে এবং সোমবার আরো চারজনকে উদ্ধার করা হয়। আর আজ মঙ্গলবার বাকী পাঁচজনকে উদ্ধার করার মধ্য দিয়ে এই অভিযান সমাপ্ত হলো।

গুহায় আটকা কিশোরদের বয়স ১১ থেকে ১৬ বছর।

এক ডুবুরির মৃত্যু

এই অভিযানে অংশ নিতে গিয়ে থাই নেভি সিলের সামান কুনান নামের একজন সাবেক ডুবুরি মারা গেছেন। ৩৮ বছর বয়সী এই ডুবুরি অক্সিজেনের অভাবে জ্ঞান হারিয়ে মারা যান। তাঁকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হবে এবং জাতীয় বীরের মর্যাদা ভূষীত করা হবে।